বাংলাদেশ সুগারক্রপ গবেষণা ইনস্টিটিউট গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৮ মার্চ ২০১৭

মহাপরিচালক

ড. মো. আমজাদ হোসেন (মহাপরিচালক, চলতি দায়িত্ব) এর জীবনবৃত্তান্তঃ

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর কৃষি মন্ত্রণালয় কর্তৃক ড. মো. আমজাদ হোসেন, পরিচালক (গবেষণা), চলতি দ্বায়িত্ব কে বাংলাদেশ সুগারক্রপ গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক (চলতি দ্বায়িত্ব) হিসাবে বিগত ২৭/০২/২০১৭ খ্রি. নিয়োগ প্রদান করা হয়। তিনি ২৮/০২/২০১৭ খ্রী. রোজ মঙ্গলবার পূর্বাহ্নে মহাপরিচালক হিসাবে যোগদান করেন। 

ড. মো. আমজাদ হোসেন, ৩০ অক্টোবর, ১৯৬৩ সালে পাবনা জেলার সাঁথিয়া উপজেলার দোপমাজগ্রাম নামক স্থানে জন্ম গ্রহণ করেন। তিনি মৃত আবুল হোসেন এবং আছিয়া খাতুন এর জ্যেষ্ঠ সন্তান। বাংলাদেশ সুগারক্রপ গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএসআরআই) এর মহাপরিচালক নিযুক্ত হওয়ার পূর্বে তিনি অত্র প্রতিষ্ঠানের পরিচালক (গবেষণা) হিসেবে কর্মরত ছিলেন এবং তিনি ৩১ জানুয়ারী ২০১৬ খ্রি. হতে ২১ ফেব্রুয়ারী ২০১৬ খ্রি. পর্যন্ত বাংলাদেশ সুগারক্রপ গবেষণা ইনস্টিটিউট এর মহাপরিচালক হিসাবে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করেন। 

ড. মো. আমজাদ হোসেন, বিএসআরআই এ বায়োটেকনোলজি গবেষণার পথিকৃৎ। তিনি ২০০২ সাল থেকে প্রতিষ্ঠাতা বিভাগীয় প্রধান হিসাবে বায়োটেকনোলজি গবেষণা বিভাগ, বাংলাদেশ সুগারক্রপ গবেষণা ইনস্টিটিউট, ঈশ্বরদী, পাবনা এর গবেষণা কার্যক্রম পরিকল্পনা, প্রণয়ন, বাস্তবায়ন ও তত্ত্বাবধান, গবেষণাগার ও মাঠে গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা, ডাটা বিশ্লেষণ, গবেষণা প্রতিবেদন প্রস্তুতকরণ এবং উপস্থাপনাসহ গবেষণা ও প্রশাসনিক কার্যক্রম সফলভাবে পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনা করেন। 

তিনি ১৯৭৮ সালে পাবনা জেলার আতাইকুলা হাইস্কুল হতে এস.এস.সি এবং ১৯৮০ সালে রাজশাহী সরকারী কলেজ হতে এইচ, এস, সি, পাশ করেন। পরবর্তীতে তিনি বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহ হতে ১৯৮৪ সালে বি. এস. সি এজি (সন্মান) এবং ১৯৮৯ সালে এম. এস. সি. এজি পাশ করেন। তিনি ২০০২ সালে শিনসু বিশ্ববিদ্যালয়, জাপান হতে পিএইচডি (কৃষি বিজ্ঞান) ডিগ্রি অর্জন করেন।

তিনি ০৬ জুলাই ১৯৮৭ সাল বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা (বিএআরসি প্রকল্প) হিসাবে সর্বপ্রথম অত্র প্রতিষ্ঠানে যোগদান করেন। তারপর ১০ ডিসেম্বর ১৯৮৯ সালে বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা হিসাবে রাজস্বভূক্ত পদে যোগদান করেন, ১৯৯৮ সালে উর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা, ২০০৬ সালে প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা, ২০১১ সালে মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা হিসাবে পদোন্নতি প্রাপ্ত হন। তিনি ৮ ডিসেম্বর ২০১৫ সালে পরিচালক (গবেষণা) চলতি দায়িত্ব হিসাবে যোগদান করেন।

তিনি প্রকল্প পরিচালক হিসাবে “বাংলাদেশ ইক্ষু গবেষণা ইনস্টিটিউট এর বায়োটেকনোলজি গবেষণা জোরদারকরণ প্রকল্প” (০২ সেপ্টেম্বর ২০১০ খ্রি. হতে ৩০ ডিসেম্বর ২০১৪ খ্রি.পর্যন্ত ); “পার্বত্য চট্টগ্রামে ইক্ষু চাষ সম্প্রসারণের জন্য পাইলট প্রকল্প” (২য় পর্যায়) (৩০ নভেম্বর ২০১৪ খ্রি. হতে ৩০ জুন ২০১৫ খ্রি. পর্যন্ত); প্রকল্পের প্রধান গবেষক হিসাবে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল (বিএআরসি)-এর কমিশনড রিসার্চ পোগ্রা